Sunday, 19 May 2024 | English

আকস্মিক পীড়া, দূর্ঘটনায় হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসা

আকস্মিক পীড়া, দূর্ঘটনায় হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসা

আজকে আমরা জানব বিভিন্ন আকস্মিক পীড়া, হঠাৎ দূর্ঘটনা যেমন স্ট্রোক করলে বা হার্ট অ্যাটাক করলেপুড়ে গেলে, হাত-পা মচকে গেলে, কেটে গেলে, বিষক্রিয়ায়,চোখে কিছু পড়লে, হাড়ে আঘাত লাগলে, হঠাৎ অজ্ঞান হলে, পেটে ব্যাথা ইত্যাদির হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসা সর্ম্পকে।


১। হার্টের পীড়া বা ষ্ট্রোকঃ

হঠাৎ কারও হার্টের পীড়া শুরু হলে বা ষ্ট্রোক করলে সাথে সাথে একোনাইট (Aconite Nap) ২০০, ১০/১৫ মিনিট অন্তর ৪/৫ মাত্রা প্রয়ােগ
করে, সালফার (Sulfur) ২০০, এক মাত্রা প্রয়োগ করবেন। পরে লক্ষন অনুযায়ী ঔষধ প্রয়ােগ করবেন।


২। পুড়ে গেলেঃ

হঠাৎ পুড়ে গেলে নারিকেল তৈলের সাথে এসিটিক এসিড (Acetic acid) Q মিশিয়ে বাহ্যিক প্রয়ােগ করবেন ও ক্যান্থারিস্ (Cantharis) ৬, ২/১ ঘণ্টা অন্তর ১ মাত্রা করে খেতে দেবেন। ৫/৬ মাত্রার বেশী লাগবে না।

৩। হাত, পা মচকে গেলেঃ

হঠাৎ হাত, পা মচকে গেলে আর্ণিকা (Arnica Mont) Q, বাহ্যিক প্রয়োগ করবেন ও আর্ণিকা (Arnica Mont) ২০০, বা রাসটক্স (Rhus Tox) ২০০, দিনে ২ বার ২ মাত্রা খেতে দেবেন। ২/১ দিনেই ভাল হয়ে যাবে।


৪। কেটে গেলে

হঠাৎ কোথাও কেটে গেলে কাসিয়া সােফেরা (Cassia Sophera) বা ফেরাম ফস (Ferrum Phos) ৩x, বাহ্যিক প্রয়োেগ করবেন। খুব ধারালো অস্ত্র দ্বারা কাটলে স্ট্যাফিসেগ্রিয়া (Staphysagria) ৩০, ২/৩ ঘণ্টা অন্তর প্রয়ােগ করবেন এবং অন্যান্য ক্ষেত্রে আর্ণিকা (Arnica Mont) ৩০, লিডাম (Ledum Pal   ) ৩০, বা হাইপেরিকাম (Hypericum Perforatum) ৩০, ২/৩ ঘণ্টা অন্তর ব্যবহার করবেন।


৫। চোখে কিছু পড়লেঃ

হঠাৎ চোখে কিছু পড়লে সালফার (Sulfur) ৩০, বা সাইলিসিয়া (Silicea) ২০০, ২/৩ ঘণ্টা অন্তর ২/৩ মাত্রাই যথেষ্ট । প্রয়ােজনবােধে চোখে ইউফ্রেসিয়া (Euphrasia) Q, পানির সাথে মিশিয়ে বাহ্যিক প্রয়োগ করবেন।

৬। হাড়ে আঘাত লাগলেঃ


হাড়ে আঘাত লাগলে সিম্ফাইটম (Symphytum) ৬, ২/১ ঘণ্টা অন্তর ২/৩ মাত্রাই যথেষ্ট।


৭। হঠাৎ অজ্ঞান হলেঃ

হঠাৎ অজ্ঞান হলে :- আঘাতে আর্ণিকা (Arnica Mont) ২০০, আনন্দ সংবাদে কফিয়া (Coffea Cruda) ২০০, খারাপ সংবাদে ইগ্নেসিয়া (Ignatia) ৩০, সূর্য তাপে গ্লোনইন (Glonoine) ৩০, ভয় পেলে ওপিয়াম (Opium) ৩০, ১০/১৫ মিনিট অন্তর ৩/৪ মাত্রা ব্যবহারই মথেষ্ট।

৮। খাদ্যে বিষক্রিয়ায়ঃ

খাদ্যে বিষক্রিয়ায় ভেধ-বমিতে আক্রান্তদের একোনাইট (Aconite Nap) ৩x, প্রতিবার পায়খানা বা বমির পর। আর যাহারা আক্রান্ত হননি তাদের ২/৩ ঘণ্টা অন্তর প্রয়ােগে অব্যর্থ ফল পাবেন। এক্ষেত্রে আর্সেনিক এল্ব (Arsenic Alb) ৬, বা এন্টিম ক্রড (Antim Crud) ৬, ভেদ বমিতে আক্রান্তদের বেলায় ডেগ বমি বন্ধ না হওয়া পর্যন্ত ২/১ ঘণ্টা অন্তর ও অন্যান্যদের বেলায় দিনে ২ বার প্রয়োগ করবেন।

৯| হঠাৎ পেটে ব্যথাঃ

হঠাৎ পেটে ব্যথা হলে কলোসিন (Colchicum) Q, ৫ ফোটা মাত্রায় ২/১ বার ব্যবহার করলে কমে যাবে। আর, তাতে না কমলে কলােসিন (Colchicum) ৩০/২০০, ১ মাত্রাই যথেষ্ট।

এছাড়া পেট ফুলে, জ্বালা করে ও ব্যাথা হয় ঐসব ক্ষেত্রে এসিটিক এসিড (Acetic Acid)

 

 

 

রেফারেন্সঃ

  • হোমিও দর্শনে রোগ নিরাময় ~ ডাঃ জয়

ডাঃ মোঃ আঃ হান্নান মিয়া (বি,এ)

ডি.এইচ.এম.এস (ঢাকা)


অহনা ভিলা, ধানুয়া কলেজ পাড়া, শিবপুর, নরসিংদী

রোগী দেখার সময়ঃ শুক্রবার বিকাল ৫টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত।


বাগদী প্রাইমারী স্কুলের পূর্ব পার্শ্বে, আব্দুল বাতেনের বাড়ি, কালিগঞ্জ, গাজীপুর

রোগী দেখার সময় বিকাল ৩টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত।

মোবাইলঃ ০১৭৩৯-৬৮২৬৯২, অথবা বার্তা পাঠান

(প্রতি শনিবার যোগাযোগ সাপেক্ষে রোগী দেখা হয়)

Share this post
More
Dr. Abdul Hannan Mia
প্রতিকারের চেয়ে প্রতিরোধ ভালো।
Recommended for you
Comments